1. admin@pekuanews24.com : admin-pekuanews :
  2. mdjalalpekua@gmail.com : jalal uddin : jalal uddin
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

পেকুয়ায় ৯৯৯ এ কল দিয়ে স্বামীর পৈচাশিক নির্যাতন থেকে বাচঁল স্ত্রী

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২

পেকুয়া প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের পেকুয়ায় স্বামীর পৈচাশিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশের সহায়তা চাইলেন জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক গৃহবধূ।

আহত গৃহবধূ জন্নাতুল ফেরদৌস (৪০) কে পুলিশ ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

বৃহস্প্রতিবার (১৩ জানুয়ারী) দুপুর ২ টায় উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের দশের ঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আহত গৃহবধূ ওই এলাকার নুরুল আলমের স্ত্রী ও মৃত দুলা মিয়ার মেয়ে।

অভিযোগে জানা যায়, রাজাখালী ইউনিয়নের দশের ঘোনা এলাকার মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে নুরুল আলমের সাথে একই এলাকার মৃত দুলামিয়ার মেয়ে জন্নাতুল ফেরদৌসের মধ্যে ইসলামী শরীয়া মোতাবেক ২৮ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর বেশ সুখে শান্তিতে সংসার করে তাদের কুলজুড়ে ৪ সন্তান জন্ম নেয়। ইতিপূর্বে ১ ছেলে ও ১ মেয়েকে বিবাহ করা হয়। বিগত কয়েক বছর ধরে আহতের স্বামী নেশায় ও পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। প্রতিনিয়ত ঘরে এসে স্ত্রীর উপর চালায় শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন। অনেক সময় মারধর করে ঘর থেকে বের করে দেয়। এ নিয়ে স্থানীয়রা অনেকবার তাকে বারণ করলেও তার তোয়াক্কা করেননি।

আহত গৃহবধূ জন্নাতুল ফেরদৌস বলেন, কিছু দিন আগে জমি বন্ধক দিয়ে টাকা নিয়ে কোথায় চলে যায় আর খোঁজ খবর থাকে না। টাকা শেষ হলে আবার ঘরে ফিরে আসে আমি এগুলোর কারণ জানতে চাইলে আমার উপর শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন করে। এ সময়ের মধ্যে আমি জানতে পারি আমার স্বামী নুরুল আলম আমার ছোট ভাই মৃত আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী আকলিমার সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। সে কিছু দিন পর টাকা পয়সা নিয়ে আমার ছোট ভাইয়ের বউকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে সময় কাটায়। ঘটনার দিন ৭/৮ দিন ঘর থেকে বের হয়ে কোথায় গেছে বললে আমাকে নির্যাতন চালায়। এসময় আমি কোন উপায় না পেয়ে পুলিশের সহায়তা পেতে ৯৯৯ এ কল দিয়ে সহায়তা চাইলে পেকুয়া থানার উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এ এস আই) জসিম উদ্দিন ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়। পুলিশকে দেখে সে আমাকে মারধর করে তোকে তালাক দিলাম বলে ঘরের পিছন দিয়ে পালিয়ে যায়। আমি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

এদিকে আহত গৃহবধূ জন্নাতুল ফেরদৌস বাদী হয়ে অভিযুক্ত স্বামী নুরুল আলমকে বিবাদী করে পেকুয়া থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান।

এ প্রসঙ্গে পেকুয়া থানার উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক ( এ এস আই) জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন........

© All rights reserved © 2020 Pekuanews24.com